জাল/যয়ীফ হাদিস

প্রচলিত জাল ও য'ইফ হাদীস- ২

Alorpath 5 months ago Views:124

প্রচলিত জাল ও য'ইফ হাদীস- ২


প্রচলিত জাল ও য'ইফ হাদীস- ১

২৬। তোমরা আকিক পাথরের আংটি ব্যাবহার কর, কারণ সেটি বরকতপূর্ণ

হাদীসটি জাল

২৭। তোমরা আকিক পাথরের আংটি ব্যাবহার কর, কারণ সেটি দারিদ্রকে দূরীভূত করে

হাদীসটি জাল

২৮। তোমরা আকিক পাথরের আংটি ব্যাবহার কর। কারণ সেটি কর্ম সম্পাদনে সর্বাপেক্ষা সফল আট ডান হাত সৌন্দর্যের জন্য সর্বাধিক উপযুক্ত

হাদীসটি জাল

২৯। তোমরা আকিক পাথরের আংটি ব্যাবহার কর। কারণ সেটি তোমাদের কোন ব্যাক্তির নিকট থাকাকালীন তাঁকে চিন্তা গ্রাস করবে না

হাদীসটি জাল

৩০। যে ব্যাক্তি আকিক পাথরের আংটি ব্যাবহার করবে, সে সর্বদা কল্যাণই দেখতে পাবে

হাদীসটি জাল

৩১। তোমরা শুকনা খেজুরের সাথে কাঁচা খেজুর খাও। কারণ শয়তান যখন তাঁকে দেখে তখন ক্রোধান্বিত হয় এবং বলেঃ আদম সন্তান জীবন ধারন করে এমনকি নতুনকে পুরাতনের সাথে মিলিয়ে আহার করে

হাদীসটি জাল

৩২। তোমরা শুকনা খেজুর থুথুর সাথে মিশিয়ে খাও, কারণ তা জীবাণুকে হত্যা করে

হাদীসটি জাল

৩৩। জান্নাতে অধিকাংশ মালা হবে আকীক পাথরের

হাদীসটি জাল


৩৪। তোমাদের রমণীদের নেফাসের রক্ত প্রবাহিত হওয়া কালীন খেজুর খাওয়াবে, কারণ যে নারীর খাদ্য তার নেফাসের সময়ে শুকনা খেজুর হবে তার সন্তান বুদ্ধিমান হয়ে বের হবে। কারণ এটি মারইয়াম-এর খাদ্য ছিল। যখন তিনি ঈসাকে প্রসব করেন, তখন তার জন্য আল্লাহ যদি শুকনা খেজুরের চাইতেও উত্তম খাবার সম্পর্কে জানতেন, তাহলে তাই তাঁকে খাওয়াতেন

হাদীসটি জাল

৩৫। ধৈর্য ধারন করার চেয়েও দুনিয়াকে পরিত্যাগ করা অতি তিক্ত এবং আল্লাহর পথে তরবারী ভাংগার চাইতেও কঠিন। দুনিয়াকে যে ব্যাক্তই পরিত্যাগ করে তাঁকে দেয়া হয় সেরূপ প্রতিফলন যেরূপ দেয়া হয় শহীদদেরকে। তাঁকে পরিত্যাগ করার অর্থ হচ্ছে খাদ্য কম গ্রহণ করা, তৃপ্ত কম হওয়া এবং মানুষের প্রশংসাকে ঘৃণা করা। কারণ যে ব্যাক্তি মানুষের প্রশংসাকে ভালবাসে সে দুনিয়া তার সম্পদকে ভাল বাসলো। আর যাকে সম্পদ আনন্দিত করে সে যেন মানুষের প্রশংসাকে পরিত্যাগ করে

হাদীসটি জাল

৩৬। সৎ কর্মশীল লোক দুনিয়াতে সুসজ্জিত হতে পারে না দুনিয়াকে পরিত্যাগ কারীর ন্যায়

হাদীসটি জাল

৩৭। বান্দা কোন রহস্যকে গোপন করলে, আল্লাহ তাঁকে সেই রহস্যের চাঁদর পরিয়ে দেন। যদি তা (রহস্যটি) কল্যাণকর হয় তাহলে কল্যাণকর আর যদি তা হয় অনিষ্টকর হয় তাহলে অনিষ্টকর

হাদীসটি নিতান্তই দুর্বল

৩৮। দস্তরখানা যখন বিছিয়ে দেয়া হবে তখন কোন ব্যাক্তি দস্তরখানা না উঠানো পর্যন্ত দাঁড়াবে না এবং তার হাত উঠবে না, যদি তৃপ্ত হয়ে যায় যতক্ষণ পর্যন্ত লোকেরা খাওয়া সম্পূর্ণ না করবে এবং ওযুহাত পেশ না করবে। কারণ ব্যাক্তি তার সাথির নিকট লজ্জাবোধ করে, ফলে সে তার হাতকে গুটিয়ে নেয় অথচ খ্যাদ্যে হয়ত তার আরও প্রয়োজনীয়তা ছিল

হাদীসটি নিতান্তই দুর্বল

৩৯। যতক্ষণ না খাদ্য সামনে থেকে উঠিয়ে নেয়া হবে ততক্ষণ তিনি খাদ্য হতে উঠিয়ে দিতে নিষেধ করেছেন

হাদীসটি নিতান্তই দুর্বল

৪০। তিনি জ্বীনের যাবহ করা জন্তু গ্রহণ করতে নিষিদ্ধ করেছেন

হাদীসটি জাল

৪১। তুমি যে সব কিছুর আকাংখা কর সে সব কিছুকে খাওয়াই হচ্ছে অপচয়ের অন্তর্ভুক্ত

হাদীসটি জাল

সূরাঃ আল-ফাতিহা - ১

৪২। তোমরা তোমাদের হৃদয়গুলোকে কম হাসি এবং কম তৃপ্তি দ্বারা জীবন্ত-জাগ্রত কর এবং ক্ষুধা দ্বারা সেগুলোকে পবিত্র কর, তাহলে তা ছোট এবং পাতলা হবে

হাদীসটির কোন ভিত্তি নেই

৪৩। সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ সেই ব্যাক্তি যার খাবার হাসি কম এবং সন্তষ্ট থাকে সেই বস্তুতে যা তার লজ্জাস্থানকে আবৃত করে

হাদীসটির কোন ভিত্তি নেই

৪৪। কিয়ামতের দিবসে মর্যাদার দিক থেকে আল্লাহর নিকট তোমাদের সর্বশ্রেষ্ঠ ব্যাক্তি সেই যে তোমাদের মধ্যে দীর্ঘ ক্ষুধায় জড়িত এবং আল্লাহর ব্যাপারে দীর্ঘ চিন্তামগ্ন। আর কিয়ামতের দিবসে আল্লাহর নিকট ঘৃণিত তারাই যারা অধিক ঘুমায়, অধিক ভক্ষন করে এবং অধিক পান করে

হাদীসটির কোন ভিত্তি নেই

৪৫। তোমরা পরিধান কর এবং অর্ধপেটে পান কর, কারণ তা হচ্ছে নবুওয়াতের এক অংশ

হাদীসটির কোন ভিত্তি নেই

৪৬। তৃপ্তি সহকারে ভক্ষন শ্বেত রোগের অধিকারী করে

হাদীসটির কোন ভিত্তি নেই

৪৭। তোমরা তোমাদের আত্নার সাথে ক্ষুধা এবং তৃষ্ণা দ্বারা সংগ্রাম কর। কারণ তাতে সাওয়াব অর্জিত হয়, আল্লাহর পথে জেহাদকারীর সাওয়াবের ন্যায়। ছাড়া ক্ষুধা তৃষ্ণার চেয়ে আল্লাহর নিকট অধিক পছন্দনীয় কর্ম নেই

হাদীসটি বাতিল, এটির কোন ভিত্তি নেই

৪৮। কর্মসমূহের সর্দার হচ্ছে ক্ষুধা এবং আত্নার অপমান হচ্ছে পশমী পোষাক

হাদীসটির কোন ভিত্তি নেই

৪৯। চিন্তা হচ্ছে ইবাদতের অর্ধেক আর অল্প খাদ্য গ্রহণই হচ্ছে ইবাদত

হাদীসটি বাতিল

৫০। তিনি যখন দুপুরের খাবার খেতেন, তখন রাতের খাবার খেতেন না। আর যখন রাতের খাবার খেতেন তখন দুপুরের খাবার খেতেন না

হাদীসটি দুর্বল



মন্তব্য